Download Free FREE High-quality Joomla! Designs • Premium Joomla 3 Templates BIGtheme.net
Home / Prime News / মোদী জিতলে গ্রাম ছাড়তে হবে মুসলিমদের!

মোদী জিতলে গ্রাম ছাড়তে হবে মুসলিমদের!

ভারতের লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করা হবে বৃহস্পতিবার। ফলাফল নিয়ে সবচেয়ে বেশী আতঙ্কের মধ্যে আছে দেশটির সংখ্যালঘু মুসলিমরা। এমন আতঙ্কের কথাই শোনা গেলো উত্তর প্রদেশের নয়াবাঁস এলাকার মুসলমানদের কাছে। যুক্তরাজ্য ভিত্তিক আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা রয়র্টাসের বরাত দিয়ে এমন খবর প্রকাশ করেছে ভারতীয় গণমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডে ও সংবাদ প্রতিদিন।

নয়াবাঁসে আগে হিন্দু এবং মুসলমান সম্প্রদায়ের মানুষ একসঙ্গে বাস করতেন। জন্ম হোক কিংবা মৃত্যু, সবাইকে জীবনের যেকোনো মুহূর্তে একে অন্যকে পাশে পেতেন সকলে। সর্বধর্ম সমন্বয়ের ঐতিহ্যকে আগলে বাঁচতেন এখানকার মানুষ।

তবে বর্তমানে সেই ছবি পুরোটাই বদলে গিয়েছে। এখন আর পথ চলতে দেখা হলেও, কেউ কারো সঙ্গে কথা বলতে পারেন না। বিপদে কেউ কারো পাশেও থাকেন না। ধর্মের বেড়াজালই যেন এখন মূল ইস্যু। কিন্তু কেন এমন উল্টোপুরাণ? গ্রামবাসীরা যদিও এই বৈপরীত্যের কারণ খুঁজে পেয়েছেন খুব সহজেই।

এই গ্রামেরই বাসিন্দা গুলফাম আলি। তিনি এলাকায় একটি ছোট্ট দোকান চালান।

গুলফাম আলি বলেন, ‘আগে জীবনের দুঃসময় এবং সুসময়ে হিন্দু-মুসলমান সকলে একসঙ্গে থাকতাম। যেকোনো অনুষ্ঠানে যেমন একসঙ্গে আনন্দ করেছি। তেমনই দুঃখের দিনেও পাশে পেয়েছি। কিন্তু বর্তমানে আমাদের জীবনধারা কেমন যেন বদলে গিয়েছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘২০১৪ সালে নরেন্দ্র মোদি ভারতের প্রধানমন্ত্রী হন৷ এ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হন যোগী আদিত্যনাথ। দুই সম্প্রদায়ের মানুষের মধ্যে বিভেদের অন্যতম রূপকার ও তারা দুজনেই।’

অনেকটা আক্ষেপের সুরে গুলফাম আলি অভিযোগ করেন, হিন্দু-মুসলমানের মধ্যে বিভেদ তৈরি করাই মূল লক্ষ্য দু’জনের। এভাবে এই এলাকায় বাস করতে চান না তিনি। কিন্তু বললেই তো আর বসতভিটে-ব্যবসা ছেড়ে চলে যাওয়া যায় না, তাই যেতে পারছেন না।

গ্রামের বেশিরভাগ এলাকাবাসীর জানান, আতঙ্কে দিন কাটছে তাদের। রমজান পালন করছেন সকলেই। অনেকেই বলছেন, রোজা পালন করতেও নাকি বারবার বাধা পাচ্ছেন তারা। মাদ্রাসায় মাইকের ব্যবহার বন্ধ করতে নাকি চাপ দেয়া হচ্ছে তাদের। শান্তির জন্য অনেক মাদ্রাসা বাধ্য হয়ে মাইকের ব্যবহার বন্ধও করে দিয়েছে। হিন্দু সম্প্রদায়ের বেশিরভাগ মানুষ যদিও যোগীর রাজ্যের ধর্মীয় মেরুকরণকে সমর্থন করেছেন। মাদ্রাসায় ব্যবহৃত মাইক বাজানো বন্ধ হয়ে যাওয়ায় যথেষ্ট খুশি হয়েছেন তারা।

রাজনীতিবিদদরে মতে, এমন সুকৌশলে হিন্দুত্ববাদকে সকলের মনে ঢুকিয়ে দেয়া হয়েছে যে তাতেই নাকি এমন বিরোধিতা তাদের৷ ধর্মীয় ভেদাভেদকে তাস হিসাবে ব্যবহার করেই দিল্লি দখলের লড়াইয়ের রাস্তায় হেঁটেছে উত্তরপ্রদেশের গেরুয়া শিবির৷ আদৌ এই কৌশলে সাফল্য মিলবে কি না, তা বোঝা যাবে আগামী ২৩ মে (বৃহস্পতিবার)। তবে আবারো বিজেপি ক্ষমতায় আসলে নয়াবাঁস ছাড়ার কথা ইতিমধ্যেই ভেবে ফেলেছে গ্রামটির মুসলিম পরিবার গুলো।

About Repoter

Check Also

গোপালগঞ্জে মোটর সাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে যুবক নিহত

গোপালগঞ্জ: গোপালগঞ্জে মোটর সাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে লিপ্টন মোল্লা (২৩) নামে এক যুবক নিহত হয়েছে। শুক্রবার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *