Download Free FREE High-quality Joomla! Designs • Premium Joomla 3 Templates BIGtheme.net
Home / Prime News / প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিচার চাইলেন আইসক্রিম বিক্রেতা, ফোনালাপ ভাইরাল

প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিচার চাইলেন আইসক্রিম বিক্রেতা, ফোনালাপ ভাইরাল

সম্প্রতি ময়মনসিংহ জেলার এক আইসক্রিম ডিলারের সাথে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একটি অডিও ফোনালাপ ভাইরাল হয়েছে। ঐ আইসক্রিম ডিলারের নাম রফিকুল ইসলাম রফিক। তিনি কাজী ফার্ম প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে দীর্ঘদিনের প্রায় ২১ লাখ টাকা অর্থ আত্নসাতের বিচার না পাওয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে ফোন করেন৷

কথোপকথনটির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব সাজ্জাদুল হাসান। গত বছর তিনি প্রধানমন্ত্রীর একান্ত সচিব-১ ছিলেন।

কথোপকথনে প্রধানমন্ত্রীকে বলতে শোনা যায়, তিনি রফিকের বিবাদ সমাধানে সাজ্জাদুল হাসানকে বলে দেবেন। সাজ্জাদুল হাসান বলেছেন, তিনি ময়মনসিংহের ডিআইজি ও জেলা প্রশাসককে বলে দিয়েছিলেন রফিকের বিষয়টি সমাধানে। কিন্তু রফিক তার দাবির সপক্ষে কাগজপত্র দেননি। এরপর কী হয়েছে, তা তার জানা নেই।

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে টেলিফোন কথোপকথনে রফিককে বলতে শোনা যায়, কাজী ফুডস তার পাওনা ২১ লাখ টাকা দিচ্ছে না। তার ওপর সন্ত্রাসী হামলা করেছে। ময়মনসিংহের রাজনীতিবিদ এবং ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছ নালিশ করেও তিনি বিচার পাননি। ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল, ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের মেয়র ইকরামুল হক টিটু, ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল বিষয়টি সম্পর্কে অবহিত। তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা বলেছেন, রফিক নালিশ নিয়ে এসেছিলেন। এরপর কী হয়েছে, তা জানেন না।

কথোপকথনে প্রধানমন্ত্রীর কণ্ঠে সহানুভূতি ও সহায়তার আশ্বাস শোনা যায়। তিনি আশ্বাস দিয়ে বলেন, ‘টাকা পাইলে অবশ্যই টাকা দিতে হবে।’ শেখ হাসিনা আশ্বস্ত করে বলেন, ‘আমি বলে দিবো। দেখি কী করা যায়।’ রফিকুল ইসলাম সমকালকে বলেন, প্রধানমন্ত্রী খুবই ব্যস্ত। তারপরও তাকে সময় দিয়েছেন। তিন মিনিট ৩২ সেকেন্ড কথা বলেছেন। ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের বলে দিয়েছেন বিচার করে দিতে। তারপরও তিনি বিচার পাননি।

রফিক বলেন, ‘এত ছোট্ট ঘটনা প্রধানমন্ত্রীরে তো বারবার বলা যায় না। তার তো দ্যাশ চালাইতে অয়। উনি অফিসারদের কইয়া (বলে) দিছেন। তারপরও কাজ হয় না। প্রধানমন্ত্রীর কী দোষ! দোষ আমার কপালের।’

তবে কাজী ফুডসের কর্মকর্তাদের দাবি, রফিক অসহায়ত্বের গল্প বলে প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে সহানুভূতি আদায় করে টাকার জন্য তাদের ওপর চাপ সৃষ্টি করেছেন। টাকার জন্য প্রধানমন্ত্রী, পুলিশের মহাপরিদর্শক এবং রাজনৈতিক নেতাদের কাছে গেলেও রফিক কেন মামলা করছেন না। অবশ্য এর জবাবে রফিকের দাবি, তিনি গরিব। মামলা করে এত বড় প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে পারবেন না। তাই মামলায় যাচ্ছেন না।

About Repoter

Check Also

গোপালগঞ্জে মোটর সাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে যুবক নিহত

গোপালগঞ্জ: গোপালগঞ্জে মোটর সাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে লিপ্টন মোল্লা (২৩) নামে এক যুবক নিহত হয়েছে। শুক্রবার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *