Friday , May 24 2019
Download Free FREE High-quality Joomla! Designs • Premium Joomla 3 Templates BIGtheme.net
Home / News / জরুরি বৈঠক শেষে সিদ্ধান্তের কথা জানালো বিএনপি

জরুরি বৈঠক শেষে সিদ্ধান্তের কথা জানালো বিএনপি

রাত পৌনে ৭টায় বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর দুই সংসদ সদস্যকে গুলশান অফিসে সৌজন্য স্বাক্ষাতের জন্য ডাকেন। তারা এলে তাদের জানিয়ে দেয়া হয় আগামীকাল সোমবারের মধ্যে শপথ নেয়া না নেয়ার বিষয়টি জানাবে।

জানতে চাইলে উকিল আবদুস সাত্তার বলেন, আমাদেরকে মহাসচিব ডেকেছিলেন। আমরা সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছি। আগামীকালের মধ্যে বিএনপি অবস্থান জানাবে। বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার,

গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আব্দুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী রুদ্ধদার বৈঠক করেন। দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে ঠাকুরগাঁও-৩ আসনের মো. জাহিদুর রহমান (জাহিদ) গত ২৪ এপ্রিল সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নিয়েছেন। গতকাল রাতে তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়। বাকিরা শপথ নিলে তাদের বিরুদ্ধে একই ব্যবস্থা নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি। উল্লেখ্য, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করে নতুন নির্বাচনের দাবি জানিয়ে আসছে দলটি।

আরো পড়ুন>> ‘ভোটাধিকার হরণ হয়েছে। নেই বাক-স্বাধীনতা ও জবাবদিহিতা। গণতন্ত্র সংকুচিত। সুশাসন ও রাজনীতির সুযোগ মিলছে না। ‘দুঃখজনক, এতকিছুর পরও প্রতিবাদ নেই। জনস্বার্থে কেউ মাঠে নামছে না। আমরা কেউ মাঠে নামি নাই। বাঙালিরা এত প্রতিবাদী ছিল। বায়ান্ন,

উনসত্তর, একাত্তরে কত প্রতিবাদ করেছে এই বাঙালি। এখন সব মরে গেছে কেন, বুঝতে পারলাম না।’ শনিবার (২৭ এপ্রিল) জাতীয় প্রেসক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে দ্য ঢাকা ফোরাম নামের একটি সংগঠনের ‘গণতন্ত্র ও টেকসই উন্নয়ন’ শীর্ষক এক গোলটেবিল বৈঠকে বক্তারা এসব কথা বলেন।। সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা এম হাফিজ উদ্দিন খান বলেছেন, ‘দুঃখজনক, এর কোনো প্রতিবাদ নেই। আমরা কেউ মাঠে নামি নাই। বাঙালিরা এত প্রতিবাদী ছিল। বায়ান্ন,

উনসত্তর, একাত্তরে কত প্রতিবাদ করেছে এই বাঙালি। এখন সব মরে গেছে কেন, বুঝতে পারলাম না।’ হাফিজ উদ্দিন বলেন, দেশে ৩০ ডিসেম্বর যে নির্বাচন হয়েছে তা কলংকজনক নির্বাচন। ডাকসুতেও একই কায়দায় নির্বাচন হয়েছে। দেশের গুটিকতক এর প্রতিবাদ করলেও আমরা এর প্রতিবাদ করতে পারিনি। মূলত মানুষের মনে এখন ভয় ঢুকে গেছে। টকশোতে সত্য কথা বললে এখন আর তারা ডাকে না। এ অবস্থা থেকে উত্তরণে এখন তেমন কোন আভাস দেখা যাচ্ছে না।

সঠিক নেতৃত্বের অভাবে সেটা হচ্ছে না। তবে সুদানে যেভাবে ৩০ বছর পর পরিবর্তন এসেছে আমাদের দেশে ১৫ বছরের শাসন চলছে। আরো হয়তো ১৫ বছর পর পরিবর্তন আসতে পারে। এজন্য গণআন্দোলন প্রয়োজন। বাংলাদেশের মানুষ এক সময় অনেক প্রতিবাদী ছিল মন্তব্য করে তিনি বলেন, মানুষের সেই প্রতিবাদী মনোভাব এখন কোথায় গেল? মানুষ কি নির্জিব হয়ে গেল? ব্যারিষ্টার মইনুল হোসেন বলেছেন, ব্যর্থ স্বাধীনতা সবার জন্যই কলঙ্ক। জেলখানায় বসে ভোট ডাকাতির খবর শুনেছি।

১৭ কোটি মানুষকে ভীতির মধ্যে রেখে দেশে চলছে এখন মুষ্টিমেয় সুবিধাবাদীর সরকার। তাদের কাছে মিথ্যাই সত্য, দুর্নীতিই সততা। তিনি বলেন, দেশের রাষ্ট্রীয় শক্তির ভয়ভীতির আতঙ্কে আমরা রয়েছি। ভোটাধিকারের দাবি নাগরিকত্বের দাবি।

ভোটাধিকার রক্ষা করতে না পারার ব্যর্থতা দলীয় রাজনীতির ব্যর্থতা নয়, আমাদের স্বাধীনতার ব্যর্থতা। স্বাধীনতার অর্থ স্বাধীনভাবে সরকার গঠনের স্বাধীনতা, দেশ পরিচালনায় অংশগ্রহণের অধিকার। স্বাধীনতা জনগণের সরকারের নয়।

সরকারের থাকতে হবে জনগণের প্রতি দায়িত্ব পালনের দায়বদ্ধতা।’ তিনি বলেন, ‘সুপ্রিম কোর্ট নড়বড়ে অবস্থায় বিচার ব্যবস্থাকে কোনোভাবে ধরে রেখেছে। নিম্ন আদালতের জজ-বিচারকদের চাপের মুখে রাখতে সরকারের অসুবিধা হচ্ছে না।

আইন মন্ত্রণালয়ের সচিব নিজেই অহরহ ফোন করেন জজ-ম্যাজিস্টেটদের কারণীয় নির্ধারণ করে দিচ্ছেন। জনগণের সুবিচার পাবার অহয়াত্বের প্রতিফলন দেখা যাচ্ছে রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থার সর্বক্ষেত্রে।’ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ বলেন, বর্তমান উন্নয়নের ধরনে জবাবদিহির অভাব ও স্বচ্ছতার অভাব আছে। সড়ক,

রেলপথে বড় বড় প্রকল্প হচ্ছে। এসব প্রকল্পের ব্যয় ক্রমাগত বাড়ছে। এর কারণ, যারা নীতিনির্ধারক তারাই এসব প্রকল্পের পেছনে আছেন। এসব প্রকল্প ব্যয়ের সুবিধাভোগী গোষ্ঠী, দোষী, স্বার্থান্বেষী গোষ্ঠীর নিরাপত্তা নিশ্চিতে সরকার তৎপর।

কিন্তু জনগণের নিরাপত্তা নিশ্চিতে সরকার অতটা তৎপর নয়। ড. সালেহ উদ্দিন আহমেদ বলেন, সামষ্টিক সূচকের ভিত্তিতে দেশের উন্নয়ন দেখানো হচ্ছে। কিন্ত দিনকে দিন মানুষে মানুষে বৈষম্য বেড়েই চলেছে। নিম্নবিত্ত ও নিম্ন-মধ্যবিত্তের মানুষ উন্নয়নের সুবিধা থেকে নানাভাবে বঞ্চিত হচ্ছে।

দেশে শিক্ষিত বেকারের সংখ্যা বেড়েই যাচ্ছে। তিনি বলেন, গণতন্ত্র সংকুচিত হয়ে যাওয়ায় ব্যবসায়ীরা এখন সরকারের নিয়ন্ত্রণে চলে গেছে। কারণ এখন জনগণ নয় পুঁজিই ক্ষমতার উৎস হয়ে গেছে। দেশে সুশাসন নেই, জবাবদিহিতার প্রচন্ড অভাব লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

সাধারণ মানুষ ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারছে না। ভোটধিকার এখন ক্ষমতা ও অর্থের কাছে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে। দেশের এ সংকট থেকে মুক্তি পেতে গণতন্ত্র ও সুশাসন প্রতিষ্ঠা করে সমতাভিত্তিক ও টেকসই উন্নয়ন এর পথে এগিয়ে যেতে হবে।

নাগরিক ঐক্যের মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘সরকার ভোট ডাকাতি করে ক্ষমতা ধরে রেখেছে। মানুষ এখন ভয়ে কথা বলতে পারে না। এই সরকার ডাকাত সরকার। ৩০ ডিসেম্বর ডাকাতি করে ভোট নিয়েছে। আবার বলছে, উন্নয়ন হচ্ছে, প্রবৃদ্ধি হচ্ছে।

যে জিডিপিতে সমতা নেই তাকে উন্নয়ন বলা যাবে না। এটা লুটেরাদের উন্নয়ন।’ বৈঠকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতির অধ্যাপক রাশেদ আল মাহমুদ তিতুমীর, সাবেক পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আবুল হাসান চৌধুরী প্রমুখ বক্তব্য দেন।

Check Also

লজ্জাস্থানে মুখ দেওয়া কি হারাম ইসলাম কি বলে

আসসালামু আলাইকুম। জনাব! স্বামী কি স্ত্রীর যৌনাঙ্গে মুখ লাগাতে পারবে? বা স্ত্রী কি স্বামীর পুরুষাঙ্গে …

অবৈধভাবে ক্ষমতা দখলকারীর লোকেরা কখনোই গণতন্ত্র দিতে পারে না: শেখ হাসিনা

বুধবার বিকেলে মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা …

স্বামী স্ত্রী থেকে সর্বোচ্চ কতদিন দূরে থাকা যাবে?

যারা নিজেদের স্ত্রীদের নিকট গমন করবেনা বলে কসম খেয়ে বসে তাদের জন্য চার মাসের অবকাশ …

নিজের স্ত্রীকে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে ন’গ্ন ভিডিও করতেন নাজমুল

পূর্ব-পরিকল্পনা অনুযায়ী গোপন ক্যামেরায় মেয়েটির নগ্ন ছবি ও গোসলের ভিডিও ধারণ করে নাজমুল। এমনকি দুইজনের …

এমপি হলেন দুই নায়িকা

ভারতের লোকসভা ভোটে বড় ব্যবধানে সরকার গঠন করতে যাচ্ছে নরেন্দ্র মোদীর বিজেপি। তবে প্রতিবারের মতো …

টানা ৬ ঘণ্টা কৃষকের ধান কাটলেন ছাত্রলীগ সভাপতি শোভন

এবার একসঙ্গে কৃষকদের ধান কাটতে মাঠে নামলেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মো. রেজওয়ানুল হক চৌধুরী …

অবশেষে গ্রেপ্তার করা হলো ম্যারাডোনাকে

ফুটবল বিশ্বে এক আলোচিত নাম ছিলেন ম্যারাডোনা। নিজের সেই জাদুতে তিনি করেছিলেন সবাইকে মুগ্ধ। তবে …

নিজের আসনেও হেরে গেলেন রাহুল

মোদির বিজেপির কাছে বিশাল ব্যবধানে হেরেছে ভারতের সবচেয়ে প্রাচীন দল কংগ্রেস। তবে শুধু কংগ্রেস নয় …

বিপুল ভোটে বিজয়ী হলেন লকেট

ভারতের লোকসভা নির্বাচনে হুগলি থেকে ক্ষমতাসীন বিজেপির হয়ে বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়েছেন অভিনেত্রী লকেট চ্যাটার্জি। …

রোজা না রাখলেই গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠাচ্ছে মালেয়শিয়া পুলিশ

রোজা না রাখলেই মুসলমানদের ধরে ধরে কারাগারে পাঠাচ্ছে মালেশিয়া পুলিশ। আর এর জন্যে তারা বিভিন্ন …

ঘরবন্দি হয়ে আছে মমতা, দুর্দিনে পাশে পেলেন কেবল ভাইপোকে

ঘরবন্দি হয়ে আছে মমতা – লোকসভার ফলাফলে রাজ্যে বিজেপি অনেক আসনে এগিয়ে যেতেই কলকাতায় বিজেপি …

চাঁপাইনবাবগঞ্জে আমের কেজি দেড় টাকা

চাঁপাইনবাবগঞ্জের ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া কালবৈশাখী ঝড়ে লন্ডভন্ড হয়ে গেছে অধিকাংশ আমবাগান। ঝড়ের বাতাসে আম …

পদত্যাগ করছেন রাহুল গান্ধী!

ভারতের লোকসভা নির্বাচনে লজ্জাজনক হারের পর পদত্যাগ করার প্রস্তাব দিয়েছেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। তবে …

বিজেপির এমপি হলেন গম্ভীর

রাজনীতির মাঠে নেমেই বাজিমাত করেছেন ভারতের প্রাক্তন ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীর। ইস্ট দিল্লি আসনে তিনি আম …

মোদীর বিশাল জয়ে যা বলল ইসরায়েল, রাশিয়া ও চীন

২০১৪-তে নরেন্দ্র মোদী ক্ষমতায় আসার পর থেকেই আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশেষ জোর দিয়েছেন। একাধিক দেশে সফর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *